দূর করুন কাপড়ে লাগা ঘামের দাগ!

প্রচন্ড গরম! রাস্তায় বের হলে ঘাম তো হবেই। আর ঘাম হওয়া মানেই জামার হাতার নিচে, পিঠে কিংবা শার্টের কলারে ঘামের হলদেটে দাগ হওয়া। সবার সামনে দাগ নিয়ে যাওয়াটা বেশ বিব্রতকর।

তবে এই দাগ যাতে না পড়ে সে জন্য রয়েছে কিছু উপায়। এই বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে ‘সোয়েট প্যাডস’ অথবা ‘অ্যান্টিপার্সপরান্ট রোল অন’ ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আপনার জন্যে রইল এমনই কিছু উপায়। যাতে দাগ এড়ানো সম্ভব।

সোয়েট প্যাড ব্যবহার: যাদের হাতের নীচে অতিরিক্ত ঘামে তারা কাপড়ের নিচে সোয়েট প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। এটি বিশেষ ধরনের একটি তুলোর প্যাড যা আঠার সাহায্যে বগলের কাপড়ের সঙ্গে আটকে দেওয়া হয়, এতে তুলা ঘাম শুষে নেয়। ফলে কাপড়ে দাগ পড়ে না।

অ্যান্টিপার্সপরান্ট ব্যবহার: সাধারণ ডিওডোরেন্ট কাপড় দাগমুক্ত রাখতে পারে না। তাই বেছে নেওয়া যেতে পারে অ্যান্টিপার্সপরান্ট ডিওডোরেন্ট। এইগুলো কাঁধ এবং হাতের নীচে দীর্ঘ সময় শুষ্ক রাখে। ফলে কাপড়ে ঘামের দাগ পড়ার সম্ভাবনা কমে।

ট্যালকম পাউডার ব্যবহার: পাউডার ঘাম নিঃসরণকারী লোমকূপগুলো কিছু সময় বন্ধ রাখে। ফলে ঘামের মাত্রা কমে আসে। তবে পাউডার ব্যবহারের আগে ও পরে যখনই গোসল করবেন তখন অবশ্যই বাহুমূল ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে।

বগলের নীচে শেভ করা: বগলের অতিরিক্ত লোমের কারণে ঘাম বেশি হতে পারে এবং এ কারণে ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণও বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই নিয়ম করে বগলের শেভ করা উচিত। এতে ঘাম নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি দুর্গন্ধও কমে আসবে। আর ঘাম কম হলে কাপড়ে দাগও কম হবে।

মোছার জন্য টিসু: শুকনা বা ভেজা (ওয়েট টিসু), যে কোন টিসুই ঘাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য উপকারী। ব্যাগে রাখা বেশ সহজ তাই বাড়তি ঝামেলা এড়ানো যায়। আর অতিরিক্ত ঘাম মুছে ফেললে কাপড়ে দাগ হওয়ার ঝামেলাও থাকে না।

১৫ কেজি ওজন কমিয়ে অন্যরকম শাকিব

13315455_489873474555650_8854039096567794424_nঢাকাই সিনেমার নাম্বার ওয়ান হিরো শাকিব খান লন্ডনে শুটিং নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। কলকাতার চিত্রনায়িকা শ্রাবন্তী রয়েছেন শাকিবের সহশিল্পী হিসেবে। যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘শিকারি’তে এই জুটিকে পর্দায় দেখা যাবে। ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য ১৫ কেজি ওজন কমিয়েছেন শাকিব।

সম্প্রতি মেদ ঝরিয়ে একেবারে নতুন লুকে হাজির হলেন তিনি। ‘শিকারি’তে শাকিবকে দেখা যাবে একেবারেই অন্যরকম লুকে। হেয়ারস্টাইল থেকে শুরু করে অভিনয়- সবকিছুতে পরিবর্তন এনেছেন। এর জন্য গত কয়েকমাস ধরে খাওয়া দাওয়া একেবারেই কন্ট্রোলে এনেছেন তিনি। নিয়ম করে জিমে ঘাম ঝরাচ্ছেন। লন্ডনে ‘শিকারি’র শুটিং চলছে। ৩ জুন তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

জাজ মাল্টিমিডিয়া ও এসকে মুভিজের যৌথ প্রযোজনায় ছবিটি যৌথভাবে পরিচালনা করছে জয়দীপ ও সীমান্ত। ছবিতে শাকিব খান ও শ্রাবন্তীর পাশাপাশি অভিনয় করছেন শিবা সানু, সোহেল, রেবেকা, সুব্রত, খরাজ মুখার্জি, সুপ্রিয় দত্ত, রাহুল দেবসহ আরও অনেকে। ‘শিকারি’ ছবিটি ঈদে মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের।

‘সুলতান’ থেকেও বাদ পড়ল অরিজিৎ!

ছবি মুক্তির আগেই ছবি থেকে বাদ পড়েছেন অরিজিৎ সিং। অরিজিৎ-এর গাওয়া ভাল গান দায়িত্ব নিয়ে নিজেই বাদ দিয়েছেন সালমান খান। অরিজিৎ সিং প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়েও মিটাতে পারলো না সালমানের রাগ। আর তাতেই কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন গায়ক।

অরিজিতের দাবি, বেশ কয়েকবছর আগের এক অ্যাওয়ার্ড ফাংশানে ক্যাসুয়াল পোশাক পরে যাওয়ার অপরাধে তার উপর রেগে রয়েছেন সালমান। সেই অনুষ্ঠানে সালমান নাকি নানা কথাও শুনিয়েছিলেন তাকে। কিন্তু এরপর নানা সময়ে নানাভাবে ক্ষমা চেয়েছেন অরিজিৎ। তাও নাকি মন গলেনি সালমানের। মুখে কিছু না বললেও ক্যারিয়ারের ক্ষতি করছেন অরিজিতের। এই অবস্থার সামাল দিতে গিয়ে জনসমক্ষে সালমানের কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন অরিজিৎ। কিন্তু সমস্যা মেটেনি এতেও। ক্ষমা চাওয়ার পরও মিডিয়ার সামনে বিস্ফোরক অরিজিৎ।

তিনি জানিয়েছেন, প্রথমে ‘কিক’, তারপর ‘বজরঙ্গী ভাইজান’ এবং তারপর ‘সুলতান’ একটার পর একটা ছবিতে তার গাওয়া গান বাতিল করে দিচ্ছেন সালমান। প্রথম দু’বার তার গান বাতিল করা হলে তিনি নাকি ব্যক্তিগতভাবে সালমানের কাছে ক্ষমা চান। সালমান নাকি তাকে বলেনও তিনি আর রেগে নেই। কিন্তু এরপরেও সালমানের আগামী ছবি ‘সুলতান’ থেকে অরিজিতের গাওয়া গান বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। অরিজিতের দুঃখ, গান যদি খারাপ হত তার জন্যও বাতিল করা হত, তবে কিছু বলার থাকত না। কিন্তু রোষের কারণে গুরুত্বপূর্ণ গান ছবি থেকে বাদ পড়ছে।

এদিকে আলোচনার হিট লিস্টে এখন ‘সুলতান’। হরিয়ানার এক পালোয়ানের চরিত্রে এবার দেখা যাবে সালমান খানকে। ‘সুলতান’ ছবির জন্য নিজের ওজনও বাড়িয়েছেন ‘ভাইজান’। তাই খাদ্য তালিকায় বাড়িয়ে দিয়েছেন ক্যালোরির পরিমাণ। আলি আব্বস পরিচালিত এই ছবিতে সালমানের বিপরীতে রয়েছেন অনুষ্কা শর্মা। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে ছবির পোস্টার ও ট্রেলর।

ডিবির হাতে মাহির আগের বিয়ের কাগজপত্র

চলচ্চিত্র নায়িকা মাহিয়া মাহি ও তার আগের (দ্বিতীয়) স্বামী শাহরিয়ার শাওনের বিয়ের কাগজপত্র এখন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবির হাতে।
এছাড়া বাড্ডার বাসা থেকে শাওনের একটি কম্পিউটার, একটি ট্যাব ও দুটি মোবাইল ফোনসেটও জব্দ করেছে ডিবি।
রিমান্ডে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে শাওন দাবি করেছেন, ২০১৫ সালে বাড্ডার কাজী অফিসে বিয়ে করেন শাওন ও মাহি। উত্তরা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে একই ক্লাসে পড়তেন তারা। তখন থেকেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।
ডিবির সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, শাওনের কম্পিউটার থেকে মাহি ও শাওনের মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ফুটেজ উদ্ধার করা হয়েছে।
তিনি আর জানান, মাহি-শাওনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকে আপলোড করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন শাওন। তার দাবি, স্ত্রী হিসাবে মাহির অনুমতি নিয়েই এসব ছবি আপলোড করা হয়েছে।
মামলা দায়েরের পর শনিবার রাতেই ডিবির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ছানোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি টিম দক্ষিণ বাড্ডার ক/১৩ নম্বর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শাওনকে গ্রেফতার করে। রোববার দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে ডিবি।এদিকে মাহির দাবি, তার অনুমতি না নিয়েই ওইসব ছবি ফেসবুকে আপলোড করা হয়েছে। এতে তার সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে। তাই তিনি শনিবার রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছেন।maxresdefault
শাওন স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম। তিনি একজন ব্যবসায়ী।
শাওন ডিবিকে জানায়, কলেজ জীবন থেকেই মডেল ও অভিনেত্রী হওয়ার শখ ছিলো মাহির। চলচ্চিত্র নির্মাণকারী একটি প্রতিষ্ঠানের এক কর্মকর্তার সঙ্গে পরিচয়ের সূত্র ধরে ২০১২ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে তার।
তার দাবি, চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরুর পরও তাদের ভালো সম্পর্ক ছিল। মাহির সিনেমার শ্যুটিং স্পটেও যেতেন শাওন। সিনেমার প্রযোজক থেকে শুরু করে পরিচালকরা জানতেন মাহির স্বামী শাওন।
শাওন জানান, গত বছর থেকে তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হতে থাকে। সম্প্রতি সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ অপুর সঙ্গে মাহির তৃতীয় বিয়ে হয়। এরপর থেকেই সব প্রেক্ষাপট দ্রুত পরিবর্তন হয়ে যায়। জানা গেছে, মাহি প্রথমবার বিয়ে করেছেন চলচ্চিত্রে আসার আগে ২০১০ সালে। পাত্রের নাম পলাশ। এক বছর পর ডিভোর্স হয়ে গেলে ২০১৫ সালে শাওনকে বিয়ে করেন এ অভিনেত্রী।
সর্বশেষ ২৪ মে গোপনে ব্যবসায়ী অপুকে বিয়ে করেন মাহি। খবর প্রকাশ হয়ে গেলে ২৫ মে গণমাধ্যমের উপস্থিতিতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন তিনি।
এর রেশ কাটতে না কাটতেই ২৭ মে বিভিন্ন অনলাইন ও সোশ্যাল মিডিয়ায় চাউর হয়, মাহি আগেও দুইবার বিয়ে করেছেন। বিশেষ করে শাওনের আপলোড করা ছবি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।
গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ছানোয়ার হোসেন বলেন, ‘মাহি-শাওন স্বামী-স্ত্রী হয়ে থাকলেও তাদের গোপন ছবি ফেসবুকে আপলোড করা সমাজের জন্যও ক্ষতিকর। তাদের মধ্যে স্বামী-স্ত্রী সম্পর্ক আছে কি না তা আমাদের দেখার বিষয় নয়। অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি আপলোড করার বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।’

চাকরি, সংসার সামলেও যেভাবে ব্যবসা করা যায়

কর্মজীবী নারী নাগিনা আবদুল্লাহ। একযোগে বহু কাজ করতে হয় তাকে। ফুল টাইম চাকরি করেন। সংসার সামলাম। একই সঙ্গে একটা সাইড বিজনেস গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন। আধুনিক নারীরা তার মতো এগিয়ে আসছেন। চাকরির পাশাপাশি ব্যবসা এবং সংসার দেখাশোনা সবই করতে চান। যথেষ্ট চাপ না নিয়েও কিভাবে সুষ্ঠুভাবে এসব দায়িত্ব পালন করা যায়, সে সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছেন।

১. চিন্তা-ভাবনা গুছিয়ে নিন। তবে এখানে সীমাবদ্ধতা নেই। যখন ব্যবসা শুরুর চিন্তা করছেন, তখন কি করা সম্ভব সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে। বিভিন্ন অনলাইন বিজনেস পর্যবেক্ষণ করতে থাকুন। যখন দেখবেন, আপনার মতো বহু নারী সফল হয়েছেন, তখন বুঝত পারবেন কি করা সম্ভব। এভাবে যাদের চিনেছেন তাদের সঙ্গে গিয়ে দেখা করেছেন নাগিনা। দুই সন্তানের জননী এমা জনসন ওয়েলদি সিঙ্গেল মমি সাইটের প্রতিষ্ঠাতা। এর মাধ্যমে তিনি পেশাদারদের সহায়তা ও পরামর্শ দেন। তার ইমেইল তালিকায় ১২ হাজার ঠিকানা রয়েছে। পোডকাস্ট চালু করেছেন যেখানে মেহমান হিসাবে পাওয়া যায় আরিয়ানা হাফিংটনের মতো সফল নারীদের।

২. ব্যস্ত নারী হিসাবে আপনার হয়তো অনলাইন ব্যবসা করার সুযোগটা একটু বেশি। আধুনিক যুগে ব্যবসার দারুণ মাধ্যম। ব্যবসা শুরুর পর এর পরিধি বাড়াতে অস্থির হয়ে পড়েননি নাগিনা। আইডিয়ার পরিবর্তন বা পরিমার্জন করতে হবে ধীরে ধীরে। মনের মতো সময় হয়তো কখনোই মিলবে না। কিন্তু কৌশলে সময় বের করে নিতে হবে। নিজের ওপর চাপ প্রয়োগ না করে সুযোগ বুঝে সময় বের করে আনুন। এর জন্যে যা করতে পারেন-

ক. যে কাজগুলো তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়, সেগুলোর পেছনে সময় ব্যয় করা বন্ধ করুন। এতে বেশ কিছু সময় বের হয়ে আসবে।

খ. অনলাইন ব্যবসার সুবধিা হলো, যেকোনো জায়গা থেকে কাজটা চালিয়ে নেওয়া যায়। প্রতিদিন সকালে ৩০ মিনিট এটার পেছনে সময় ব্যয় করলেই একে গুছিয়ে রাখতে পারবেন। এভাব নানা পরিবর্তনের মাধ্যমে নাগিনা সপ্তাহে বাড়তি ৩ ঘণ্টা সময় বের করতে সক্ষম হন।

গ. প্রতি দুটো সাপ্তাহিক ছুটির একটি ব্যয় করেন ব্যবসার পেছনে। এ সময়ে প্রচুর কাজ করা সম্ভব।

ঘ. আরো বেশি উৎপাদনশীল হয়ে উঠুন। যে সময় পাবেন তা ব্যয় করুন গুরুত্বপূর্ণ কাজে। কাজের কাজ করতে পারলে উৎপাদনশীলতা বেড়ে যাবে। ঘুমের সময় পরিবর্তন করে বা বিভিন্ন বদভ্যাস ঠিকঠাক করে অনেক উৎপাদনশীল হয়ে ওঠা যায়। প্রতিদিন সকাল, দুপুর, বিকাল ও রাতে কিছু অলস সময় থাকে। এগুলো চিহ্নিত করুন। একমাত্র ব্যবসাতেএ গুরুত্ব দিন। অপ্রয়োজনীয় কাজগুলো বাদ দিন।

৩. একটি লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যান। প্রথমেই বিশাল কল্পনায় ভেসে যাবেন না। তাহলে অন্ধের মতো দৌড়াতে হবে। এত কাজ এলোমেলো হয়ে যায়। প্রথমেই কি কি পণ্য বিক্রি করতে পারবেন তার তালিকা করুন। এই পণ্যগুলো কোথা থেকে আনবেন তা বের করুন। প্রতিমাসে পণ্য কতগুলো লাগতে পারে এবং তার মজুদ কিভাবে করবেন ইত্যাদি নিয়ে চিন্তা করুন। এসব ছোট ছোট পরিকল্পনা সাজিয়ে ফেলুন। এগুলো গুরুত্বহীন মনে হবে। কিন্তু এরাই বড় লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাওয়ার ভিত্তি গড়ে দেবে।

৪. কাজটা উপভোগ করুন। পরিবারের মানুষকে এতে যুক্ত করতে পারেন। এতে কাজটা উপভোগ্য হবে। খুব বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়লে অন্যদের সহায়তা নিন। দুই একটি কাজ তাদের মধ্যে ভাগ করে দিন। ব্যবসাকে প্রতিদিন একটু একটু করে এগিয়ে নিতে চেষ্টা করুন। আপনার দৈনন্দিন জীবনের অংশ হয়ে উঠবে এটি। নাগিনা বাড়িতে তৈরি খাবার বিক্রি শুরু করেন অনলাইনে। তার স্বামী রেসিপিগুলোর ছবি তুলতেন, বাচ্চারা রান্নার কাজে সহায়তা করতেন আর ভাই-বো বা মা দিতেন নানা পরামর্শ। গোটা কর্মকাণ্ড অনেক মজার হয়ে ওঠে। এমনকি ব্যবসা ছড়াতে আরো নানা কৌশল গ্রহণ করা যায়। পরিচিতদের নিয়ে একটা পার্টি দিন। সেখানে আপনার ব্যবসার বিষয়টিকে মূল আলোচনার বিষয় করুন। কাজের শুরুতে একটা নিউজ লেটার সোশাল মিডিয়ার বিভিন্ন গ্রুপে পাঠিয়ে দিন।

৫. যে অনলাইন ব্যবসা শুরু করেছেন তাকে এগিয়ে নিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকুন। এ বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত নিন। একে কতটা এগিয়ে নেবেন? অর্থাৎ, জীবনের মূল পেশা করে নিতে এগোবেন? প্রথম ১০দিনে ৫০০ জনের কাছে প্রচার করুন। পরের ১০ দিনে সংখ্যা দ্বিগুন করুন। এভাবে এগিয়ে যান। ব্যবসা কতটা বিস্তৃত হলো তার ওপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নিন, আপনি এটাকে মূল পেশা করবেন কিনা? চাকরি কি ছেড়ে দেওয়ার মতো অবস্থা হয়েছে? আপনি কি অন্যান্য কাজের সঙ্গে একে মানিয়ে নিতে পারবেন? কর্মঘণ্টা বৃদ্ধি করলে কি আরো এগোনোর সুযোগ রয়েছে? অন্যান্য কাজ দেখাশোনার জন্যে কাউকে নিয়োগ দিলে কি আরো বেশি সুবিধা বের করতে সক্ষম আপনি?

৬. ফুল টাইম চাকরি করেও অনলাইন ব্যবসাটা চালু রাখা যায়। চাকরির পাশাপাশি নির্দিষ্ট কিছু সময় এর পেছনে ব্যয় করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে এর পরিধি একটা নির্দিষ্ট পর্যায়ে বেঁধে ফেলতে পারেন। এভানে অন্তত ছয় অঙ্কের একটা ব্যবসা দাঁড় করাতে সক্ষম হয়েছেন নাগিনা। তিনি সব সময় নজর রাখেন কোথায় সুযোগ রয়েছে। তার ক্রেতা এবং পরিচিতজনদের সঙ্গে সব সময় যোগাযোগ রাখেন।

একাধিক বিয়ে নিয়ে বিতর্কে মাহি

বিয়ের মাত্র দুদিনের মাথায় একাধিক বিয়ের খবরে বিতর্কে জড়িয়েছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি।

২৪ মে গোপনে ব্যবসায়ী অপুকে বিয়ে করেন এ চিত্রনায়িকা। খবর প্রকাশ হয়ে গেলে ২৫ মে গণমাধ্যমের উপস্থিতিতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন তিনি।

এর রেশ কাটতে না কাটতেই ২৭ মে বিভিন্ন অনলাইন ও সোস্যাল মিডিয়ায় চাউর হয়, মাহি আগেও দুইবার বিয়ে করেছেন। প্রথমবার বিয়ে করেছেন মিডিয়ায় আসার আগে ২০১০ সালে। পাত্রের নাম পলাশ।

এক বছর পর ডিভোর্স হয়ে গেলে ২০১৫ সালে শাওন নামে অন্য একটি ছেলেকে বিয়ে করেন বলে শোনা যায়।

এ সংক্রান্ত বেশ কিছু ছবি প্রমাণ হিসেবে প্রকাশ করা হয়।

এসব ছবির ব্যাপারে প্রথমে মাহি চুপ থাকলেও গতকাল সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, ‘এসব ছবি ফেক। এগুলো শুটিংয়ে মজা করে তোলা হয়েছে। এজন্য তিনি আইনি ব্যবস্থাও নেবেন’।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মাহি অভিনীত কোনো ছবির শুটিংয়েই অনলাইন ও ফেসবুকে প্রকাশিত ছবির ছেলেটিকে (শাওন) দেখা যায়নি। কিংবা ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক না থাকলে কোনো বন্ধুর সঙ্গে এভাবে লিপকিস করার বিষয়টিও অবিশ্বাস্য। বিষয়টি এখনও ধুম্রজালের মধ্যেই রয়েছে।

যুদ্ধের চেয়েও পৃথিবীতে বেশি মানুষ মারা গেছে মশার কামড়ে!

যুদ্ধ নয়, শান্তি চাই। এটাই তো বিশ্বজুড়ে সাধারণ মানুষের স্লোগান। সত্যিই তো। সেই শুরুর দিনগুলো থেকে আজ পর্যন্ত এক-একটা যুদ্ধে কেড়ে নিয়েছে কত কত মানুষের প্রাণ। কিন্তু এক্ষেত্রে কথাটা একটু অন্যরকম করেও বলা যায়। বলা ভালো, মশা নয়, শান্তি চাই। কেন?

ভাবছেন, কেন এরকম? কারণ, মজার কথা হলেও সত্যি। মানব সভ্যতায় যত মানুষ যুদ্ধের কারণে মারা গেছে, তার চেয়ে অনেক বেশি মানুষ মারা গেছে মশার কামড়ে অসুখ করে! হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও তথ্য পরিসংখ্যান কিন্তু সেই কথাই বলছে। প্রতিবছর মশার কামড়ে গোটা বিশ্বে প্রায় ১০ লাখ মানুষ মারা যান। আর এটা চলেই আসছে, বছরের পর বছর ধরে!

‘এত পোস্টার কখনো দেখিনি’

১১ দিন পর কলকাতার বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে আরিফিন শুভ অভিনীত নতুন চলচ্চিত্র ‘নিয়তি’। আর তাই তো শুভকে কলকাতায় যেতে হয়েছে নতুন এই ছবির প্রচারণায় অংশ নিতে। এবার কলকাতায় গিয়ে তিনি রীতিমতো বিস্মিত হয়েছেন। কলকাতার বেশির ভাগ রাস্তার দেয়ালে শোভা পাচ্ছিল জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত শুভর নতুন সিনেমা ‘নিয়তি’র পোস্টার। এই পোস্টারই তাঁর বিস্ময়ের কারণ।
পাঠকের ভোটে মেরিল-প্রথম আলো তারকা পুরস্কারের এবারের আসরে সেরা অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন আরিফিন শুভ। গত ২৯ এপ্রিল সেই পুরস্কার ঘরে তোলেন তিনি। যেসব পাঠকের ভোটে তিনি সেরা নির্বাচিত হন, সেসব পাঠকের মধ্য থেকে লটারিতে গাড়ি বিজয়ীদের মধ্যে একজনের হাতে গত মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চাবি তুলে দেন। পরদিন ভোরের বিমানে চড়ে ছবির প্রচারে কলকাতায় ছুটতে হয় তাঁকে।

কলকাতা থেকে মুঠোফোনে শুভ বলেন, ‘আমি অত্যন্ত আনন্দিত। অবাকও হয়েছি। আমাদের দেশের সিনেমার এত বেশি প্রচার ও পোস্টার সারা কলকাতা শহরে এভাবে দেখতে পাব ভাবিনি। আরেকটা কথা কি জানেন, কলকাতার রাস্তায় যত বড় পোস্টার আমি দেখেছি, তা আমাদের দেশে কখনো দেখিনি। কলকাতাবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা।’

বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা শুভর এখন দারুণ সময় যাচ্ছে। গত এপ্রিল মাসে মুক্তি পেয়েছে ‘মুসাফির’। মে মাসে ‘অস্তিত্ব’। আর আগামী জুন মাসে বাংলাদেশ ও ভারতের কলকাতায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘নিয়তি’।

গান আর নাটক নিয়ে শাওন

88c8171e047f3b20aad49ef5d3f5c2ee-Shaon-1বিষণ্ণ মনে গানটি শুনলে মন ভালো হয়ে যেতেও পারে। মেহের আফরোজ শাওনের গাওয়া বেশ পরিচিত ‘যদি মন কাঁদে/ তুমি চলে এসো, এক বরষায়’ গানটির কথা বলা হচ্ছে। বিশেষ করে হুমায়ূন আহমেদ চলে যাওয়ার পর নতুন করে তাঁর এই গান শ্রোতাদের বিষণ্ণ করেছে।
এই ঈদে শাওনের গাওয়া পাঁচটি গান নিয়ে বাংলাভিশনে থাকবে একক সংগীতানুষ্ঠান। সেখানে শোনা যাবে হুমায়ূন আহমেদের এই গানটিও।
গতকাল রোববার আলাপে শাওন জানান, কয়েক দিনের মধ্যে গানগুলো রেকর্ড করা হবে। অনুষ্ঠানে গানের ফাঁকে ফাঁকে থাকবে গল্প ও গানগুলো নিয়ে নানা স্মৃতিচারণা।
টেলিভিশনের জন্য এটি শাওনের দ্বিতীয় গানের অনুষ্ঠান। চ্যানেল আইতে বছর সাতেক আগে তাঁর পাঁচটি গানের ভিডিও নিয়ে একটি অনুষ্ঠান প্রচারিত হয়েছিল।
কয়েক বছর ধরে বিশেষ দিনগুলোতে পরিচালক হিসেবেও দেখা যাচ্ছে শাওনকে। এবারের ঈদে থাকছে শাওন পরিচালিত দুটি নাটক—এসো ও চৌধুরী খালেকুজ্জামানের গুণের সীমা নাই। ২০০০ সালে হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত এসো নাটকটিতে অভিনয় করেছিলেন ফেরদৌস, শাওন ও পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার শাওনের পরিচালনায় সেখানে অভিনয় করছেন মম ও প্রাণ রায়। ফেরদৌসের চরিত্রটি কে করবেন, এখনো ঠিক হয়নি।
চৌধুরী খালেকুজ্জামানের গুণের সীমা নাই নাটকে একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করবেন রিয়াজ। এই নাটকেরও মূল চরিত্রে আছেন প্রাণ রায়।

প্রান সেমাই এর বিজ্ঞাপনে মডেল হলেন নিঝুম ফারুকী

নিঝুম ফারুকী সম্প্রতি কাজ করলেন প্রান সেমাইয়ের বিজ্ঞাপনের। নাফিজ রেজার নির্দেশনায় শুক্রবার (২০, মে) সারা দিন ব্যাস্ততার মাঝে শেষ হল প্রান সেমাইয়ের বিজ্ঞাপনের কাজ। বিজ্ঞাপনে নিঝুম ফারুকীর সাথে সহশিল্পী ছিলেন সালতানাত শুপ্ত এবং শিশু শিল্পী হিসেবে ছিলেন আইমান ও আনভিতা। আসছে রমজান মাসকে সামনে রেখে নির্মিত প্রান সেমাইয়ের বিজ্ঞাপনটি খুব শীঘ্রই টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত হবে।

13245906_972623452856328_1498367814_n

দুজন দুজনকে খুব ভালোবাসি : সাফা কবির

যে ছেলেটিকে নিয়ে আমি বলছি, তাঁর নাম বলতে চাই না। তবে সে-ই আমার প্রথম প্রেম। প্রায় পাঁচ বছর ধরে আমাদের প্রেমের সম্পর্ক।
প্রেমে পড়ার কাহিনির কথা বলছি। তখন আমি এইচএসসি পাস করেছি। ২০১২ সালের ৮ অক্টোবর। একটি ছেলে ফেসবুকে আমাকে ‘পোক’ করে। আমি তেমন গুরুত্ব দিইনি। এভাবে আরও কয়েক দিন পোক করে। পরে আমিও ছেলেটিকে পোক করি। এভাবে প্রায় সপ্তাহ খানেক চলল। একদিন ছেলেটি আমার ফেসবুক ইনবক্সে ‘হাই…লোল, হা হা হা…’ লেখে। আমিও উত্তরে ‘হাই…লোল, হা হা হা…’ লিখি। এভাবেই বন্ধুত্ব হলো। তখনো শুধুই ফেসবুক আর ফোনে কথা চলছে।
ছেলেটি আমার সঙ্গে দেখা করার আগ্রহ প্রকাশ করে। আমি রাজি হই। আমাদের দেখা হবে একটি রেস্তোরাঁয়। কিন্তু ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয় আমার। ছেলেটি আগেই এসে বসে ছিল। তাড়াহুড়ো করে হাজির হই। দুজন রেস্তোরাঁর নিচে নামছি। আমার এক আত্মীয়ের সঙ্গে দেখা হলো। বুঝতে পেরে ছেলেটি আড়ালে চলে যায়। আমার তো ভ্যাবাচ্যাকা অবস্থা।
আমাকে দেখে ওই আত্মীয় বললেন, ‘কী রে, তুই একা একা এখানে কী করছিস?’ বললাম, ‘এক বন্ধুর কাছে এসেছিলাম। ও চলে গেছে।’
ভয়ে না খেয়ে রেস্তোরাঁ থেকে বের হয়ে যাই। দিনটা আমার কাছে স্বপ্নের মতো মনে হয়েছিল। নিচে নেমেই ছেলেটিকে বলেছিলাম, ‘চলো, আমরা পালাই।’
এরপর থেকে নিয়মিত আমাদের দেখা হতো। কিন্তু কেউই একে অন্যের ভালো লাগার কথা মুখ ফুটে বলতে পারতাম না। মাঝেমধ্যে ছেলেটি বলত, ‘তোমার চোখে চোখ রেখে বলতে চাই, আমি তোমাকে অনেক পছন্দ করি।’
শুনে আমি হেসে উড়িয়ে দিতাম। কিন্তু তত দিনে মনে মনে ছেলেটির প্রতি আমারও ভালো লাগা তৈরি হয়েছে। একদিন ছেলেটি আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে বসে। সময়টা ২০১৩ সালের ৭ জুন। সেই প্রেম এখনো চলছে। মাঝেমধ্যে আমাদের ঝগড়া হয়। আবার ঠিক হতেও বেশি সময় লাগে না। আমরা দুজন দুজনকে খুব ভালোবাসি।

সাত বছর পর ‘এক্স-ফ্যাক্টর’

২০০৮ সালে শিহাব শাহীন তৈরি করেছিলেন এক্স-ফ্যাক্টর নামের এক টেলিছবি। সেখানে ইরেশ যাকের ও অপূর্বকে দেখা গিয়েছিল প্রধান দুটি চরিত্রে। সে সময় বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিল টেলিছবিটি। তাই তো এর পরের বছর আবার একই চরিত্র নিয়ে এই টেলিছবির দ্বিতীয় কিস্তি তৈরি হয়। এরপর যথারীতি হারিয়ে যায় এক্স-ফ্যাক্টর ও এর চরিত্রগুলো। সাত বছর পর সেই টেলিছবির তৃতীয় কিস্তি হতে যাচ্ছে এবার। আগের মতো নতুন সিরিজেও প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করবেন ইরেশ ও অপূর্ব।
আবার কেন এক্স-ফ্যাক্টর? পরিচালক শিহাব শাহীনের কাছে এই প্রশ্ন করলে তিনি বললেন, ‘এক্স-ফ্যাক্টর-এর দুটি সিক্যুয়ালই দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছিল। তখন থেকেই এর আরও পর্ব তৈরির অনুরোধ পেয়েছিলাম দর্শকের কাছ থেকে। এমনকি টেলিছবিটির শিল্পী ও কলাকুশলীরাও চাইছিলেন এর সিক্যুয়াল হোক।’
আগের দুই কিস্তির মতো এক্স-ফ্যাক্টর­-এর এবারের কিস্তিতেও দুই বন্ধু ও সহকর্মী মাফি ও মঈনের গল্প দেখা যাবে। আগের দুটি সিক্যুয়ালে অপূর্ব ও ইরেশ যাকেরের সঙ্গে অভিনেত্রী হিসেবে ছিলেন জেনি, মিথিলা, প্রভা, মোনালিসা ও ফারহানা মিলি। এবারের টেলিছবিতে থাকছেন শুধু মিথিলা ও মিলি। তাঁদের সঙ্গে নতুন করে যোগ হচ্ছেন মম।
এক্স-ফ্যাক্টর ৩ নিয়ে অপূর্ব জানালেন তাঁর কথা। বললেন, ‘আমার অভিনয়জীবনের কয়েকটি ভালো কাজের একটি। আমারও ইচ্ছা ছিল এর আরেকটি সিক্যুয়াল হোক। এই খবরে দর্শকেরা নিশ্চয় খুব খুশি হবেন।’ অপূর্বর মতো করে একই কথা বললেন ইরেশও, ‘এর আগে টেলিছবির দুটি সিক্যুয়ালে দারুণ মজা করে কাজ করেছিলাম। দর্শকদের পাশাপাশি আমাদের নিজেদেরও আগ্রহ ছিল এক্স-ফ্যাক্টর-এর নতুন কিস্তি নিয়ে। দেরিতে হলেও কাজটি হচ্ছে।’
পরিচালক জানিয়েছেন, ২৬ মে থেকে ঢাকার উত্তরা ও গাজীপুরে টেলিছবিটির শুটিংয়ের কথা রয়েছে।