অপরিচ্ছন্ন শুটিংবাড়ি, অভিযোগ শিল্পীদের

294f4f8eb1ed1c74a1239eddae75e2db-14045468_1031690710232856_1390621310_oশুটিংবাড়িতে বসেই কথাটা তুললেন এক অভিনেত্রী। সকাল-সন্ধ্যা-রাত তাঁকে কাজের জন্য এখানেই থাকতে হয়। শিল্পীদের দিনের বড় একটা সময় কাটাতে হয় এসব বাড়িতে। কিন্তু উত্তরার শুটিংবাড়িগুলোর শৌচাগারের অবস্থা নাকি একেবারে যাচ্ছেতাই। নোংরা আর অপরিষ্কার। এমনকি অনেক বাড়ির টয়লেটের কমোড ভাঙা। শিল্পীদের অভিযোগ, এসব টয়লেট একজন সুস্থ মানুষের পক্ষে ব্যবহার করা কঠিন।
অভিযোগের সত্যতা মিলল রাজধানীর উত্তরার বেশ কয়েকটি শুটিংবাড়িতে গিয়ে। লাবণী, আপন ঘর, আশ্রয় নামে যে বাড়িগুলোতে সারা দিন আনাগোনা হয় তারকাদের, সব বাড়ির একই অবস্থা। নাট্য পরিচালকসহ শুটিং ইউনিটের কুশলীদের সবাই শিল্পীদের অভিযোগের সঙ্গে একমত হলেন।
শুটিংবাড়ির পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিয়ে কথা হলো ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলিকের সঙ্গে। বললেন, ‘এটা আমাদের জন্য খুবই বড় সমস্যা। নারী অভিনয়শিল্পীরা অনেক সময় অপরিচ্ছন্নতার কারণে টয়লেটই ব্যবহার করেন না।’
অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করলেন শুটিং হাউস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি খলিলুর রহমানও। সপক্ষে যুক্তিও দিলেন, ‘প্রতিদিন শুটিংবাড়িতে কমপক্ষে ৫০-৬০ জন মানুষের আনাগোনা হয়। প্রত্যেকেই টয়লেটে যাওয়া-আসা করেন। এত মানুষ যদি কোনো বাড়িতে আসেন, তাহলে একটা চাপ থাকবেই।’
তবে কিছুদিন আগেও শুটিংয়ের জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমা ছিল না। এখন অবশ্য নিয়ম বদলেছে। সকাল ৮টায় শুরু করে রাত ১১টার মধ্যে শুটিং শেষ করতে হয়। তাই পরিষ্কারের জন্য একটা সময় পাওয়া যাবে বলে জানালেন খলিল।
আশার কথা শুনিয়ে খলিলুর রহমান বললেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি প্রতিটি শুটিংবাড়ির জন্য নির্দিষ্ট পরিচ্ছন্নতাকর্মী রাখার। সব বাড়িতেই নির্দিষ্ট করে পরিচ্ছন্নতাকর্মী থাকলে আর এ ধরনের সমস্যা হবে না।’

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s