ওজনের কমানোর ১০ উপায়

ওজন কমানো বেশ কষ্টকর কাজ। বিশেষত যাদের ওজন একবার বেড়ে যায়, তারা অনেক চেষ্টা করেও ওজন কমাতে পারেন না। এমন মানুষদের জন্যই ওজন কমানোর ১০টি উপায়। অবশ্য যাদের ওজন ঠিক আছে, কিন্তু মুটিয়ে যাওয়াকে ভয় পান, তারাও এই নিয়ম অনুসরণ করতে পারেন-
১. রাতে কমপক্ষে ৮ ঘণ্টা ঘুমান
অনেকেই মনে করেন বেশি ঘুমলে ওজন বাড়ে। কিন্তু জেনে অবাক হবেন, অনেক সময় রাতে ঘুম না হওয়ার কারণেও আপনার ওজন বেড়ে যেতে পারে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, যাদের রাত জাগার অভ্যাস আছে তাদের ওজন কমানো বেশ কষ্টের। কেননা রাত জাগলে রাতেও কিছু না কিছু খেতে হয়। সেই সঙ্গে যারা রাত জাগেন, তারা সাধারণত ঘরেই বসে থাকেন। হাঁটাহাঁটি কম হয়। আবার রাত জাগার কারণে দিনে হয়ত বেশি সময় ঘুমান তার। ফলে ওজন বাড়তে থাকে জ্যামিতিক হারে।
তাই ওজন কমাতে রাতে ৮ ঘণ্টা ঘুমাতে হবে।
২. খাবার বন্ধ রাখুন কিছুদিনের জন্য
সকল ধর্মেই রোযা বা খাবার বন্ধ রাখার বিধান রয়েছে। কোনটাতে নিয়ম বেশ কড়াকড়ি আবার কোনটাতে নিয়মটা বেশ সহজ। তবে যদি ওজন কমাতে আপনি খাওয়া বন্ধ রাখতে চান তাহলে আপনাকে একটু বেশি সময় না খেয়ে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে চিকিৎসকেরা।
গবেষকেরা জানান, আপনি সকালে হালকা পানি খেয়ে যান এবং সারাদিন যদি পানি ছাড়া ভারি আর কিছু না খান, তাহলে বেশ দ্রুত ওজন কমবে আপনার। এ ক্ষেত্রে শরীরে পাকস্থলী ফ্যাট এসিড পাঠানোর বদলে গ্লুকোজ পাঠায় আপনার শরীরে। ফলে ওজন দ্রুত কমে। কিন্তু না খেয়ে যদি আপনি বিছানায় শুয়ে থাকেন, তাহলে এর কোন ফল মিলবে না। বরং না খেয়ে চালিয়ে যেতে হবে আপনার দৈনন্দিন কার্যাবলী।
৩. মাছের তেল খান
কর্ড লিভার ওয়েল বা এ জাতীয় মাছের তেল ওজন হ্রাসে সহায়ক বলে জানিয়েছে গবেষকরা। স্বাস্থ্যকর ডায়াটের জন্য তাই আপনার তালিকায় নিয়মিত মাছের তেল থাকাটা জরুরি। এই তেল আপনাকে শক্তি যোগাবে কিন্তু শরীরে বাড়তি মেদ জমতে দেবে না। সেই সঙ্গে আপনার শরীরে তেলের চাহিদা পূরণ করবে এটি।
মাছের তেল সরাসরি পাওয়া না গেলে বাজার থেকে কর্ড লিভার ওয়েলের ক্যাপসুল কিনে নিতে পারেন আপনি।
৪. শুধু বাড়তি পরিশ্রমের দিন কার্বোহাইড্রেট খাবার নিন
শুধু বাড়তি পরিশ্রমের দিন আপনার খাবার মেন্যুতে কার্বোহাইড্রেট যুক্ত করুন। এ ছাড়া আপনার খাদ্য তালিকায় কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার না রাখাটাই শ্রেয়।
৫. প্রচুর পানি পান করুন
ওজন কমাতে হলে আপনাকে প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করতে হবে। পানি আপনার শরীর থেকে বাড়তি মেদ দূর করার পাশাপাশি আপনার ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করবে। আপনি ওজন কমানোর চেষ্টায় যেই পরিশ্রম করবেন, তার শক্তি যোগাবে পানি।
৬. স্বাস্থ্যকর তেল খান
বাদাম, আখরোট অথবা সিমের বিচিতে থাকা তেলকে মানব শরীরের জন সবচাইতে স্বাস্থ্য সম্মত তেল হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই খাবারগুলো আপনাকে শক্তি যোগাবে। বাড়তি পরিশ্রমে সাহায্য করবে। আপনার ত্বক মসৃণ রাখার জন্য প্রয়োজনীয় তেল সরবরাহ করবে। কিন্তু আপনার শরীরে বাড়তি মেদ হিসেবে স্থান করে নেবে না।
এই খাবারগুলোর আরো একটি ভাল দিক হল, আপনার খাদ্য চাহিদা কমিয়ে দেবে। তাই ক্ষুধা পেলে একটু বাদাম খেয়ে নিন অথবা আখরোট। সিমের বিচি ভাজি করেও খেতে পারেন। আর বাসার পাশ দিয়ে কোন বাদাম ওয়ালা গেলে চিৎকার করে আপনাকে দিয়ে যেতেও বলতে পারেন। কোন সমস্যা নেই।
৭. টেসটোসটের হরমোন বাড়াতে বেশি ব্যায়াম করুন
এটি মূলত পুরুষদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। টেসটোসটের হরমোন পুরুষদের ক্ষেত্রে কমে গেলে পেটের কাছে বাড়তি চর্বি জমতে থাকে। আর এই হরমোন বাড়ানোর জন্য আপনাকে করতে হবে বাড়তি ব্যায়াম। বিশেষত ভারি ব্যায়াম ছাড়া এটি সম্ভব নয়। তাই ভারি ব্যায়ামের জন্য প্রস্তুত হয়ে যান।
৮. প্রোটিন জাতীয় খাবার বেশি খান
আপনার মেদ কমানোর ইচ্ছায় যেন অসুস্থ হয়ে না যান! আর এ বিষয়টা নিশ্চিত করতেই প্রচুর প্রোটিন যুক্ত খাবার খান। প্রোটিন আপনার শরীরের পেশি ঘটনে সহায়তা করবে। সেই সঙ্গে আপনাকে রাখবে সুস্থ এবং প্রাণবন্ত। ফলে আপনি কর্ম-স্পৃহা ফিরে পাবেন।
৯. লাফিয়ে কিছু ব্যায়াম করুন
যদি আপনার দৌড়ানো, দীর্ঘ পথ হাটা এবং উপরের কাজগুলো করার পরও ওজন দ্রুত হ্রাস না পায়, তাহলে আপনি লাফিয়ে কিছু ব্যায়াম করতে পারেন।  দড়ি লাফ এ ক্ষেত্রে সবচাইতে গ্রহণযোগ্য ব্যায়াম। তবে আপনার শরীরের উচ্চতা অনুসারে ওজন যদি ৫ কেজির বেশি হয়। তাহলে এটা না করাই ভাল। সে ক্ষেত্রে ধীরে ধীরে ওজন কমিয়ে তারপর ব্যায়ামটি শুরু করতে পারেন। অন্যথায় অতিরিক্ত ওজন নিয়ে লাফ-ঝাপ দেয়ায় বারোটা বেজে যাবে আপনার শরীরের নিউরাল নার্ভের।
১০. ৫০০ ক্যালরি খাবার কম খান
আপনি এখন যে পরিমাণে খাবার খাচ্ছেন, তা আগে এক সপ্তাহ হিসেব করে বের করুন। এরপর আপনার বর্তমানে গ্রহণ করা ক্যালরি থেকে ৫০০ ক্যালরি খাবার কম খান। হিসেব করে প্রতিটি জিনিস খান। অন্যথায় আপনার সব কষ্ট বৃথা হয়ে যাবে। সিএনএন মেনস ফিটনেস।
Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s