বিয়ে বাড়িতে দেশীয় গান বাজানোর আহ্বান জাহিদ হাসানের

কয়েকদিন আগে পূবাইলে বালু নদীতে শুটিং করতে গিয়েছিলেন অভিনেতা জাহিদ হাসান। সেখানে রাতে তার চোখে পড়ে, নৌকায় ডিজে পার্টি হচ্ছে একের পর এক। কিন্তু সব গানই হিন্দি! এখন বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠানগুলোতেও তিনি লক্ষ্য করেন বেশিরভাগ গানই হিন্দি।

বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় মোবাইল প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোন কার্যালয়ে ‘বেয়াইনসাব’ মিউজিক ভিডিও নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জাহিদ হাসান হতাশা নিয়ে আরও বলেন, ‘একুশে ফেব্রুয়ারিতে শুনি অনেক অনুষ্ঠানে অন্য ভাষার গান বাজানো হয়। বিশেষ করে মফস্বল অঞ্চলগুলোতে এ চিত্র চোখে পড়ে বেশি। বিয়েবাড়িতেও আমাদের দেশি গান বাজানো হয় কম।’

জাহিদ হাসান বলেন, ‘আমার মনে হয়, আমাদের দেশে তেমন নাচের উপযোগী গান নেই বলে এমন হচ্ছে। আমরা যারা সংগীতের সঙ্গে সম্পৃক্ত তারা হয়তো ওভাবে চিন্তা করিনি। গানের বাজারও আগের মতো নেই। পাইরেসি হচ্ছে বলে সমস্যা থেকে যাচ্ছে। তবে বিয়েবাড়িতে বাজানোর জন্য এ ধরনের গান আরও হওয়া দরকার, তেমনি বিয়েবাড়িতেও দেশীয় গান বাজিয়ে শিল্পীদেরকে অনুপ্রাণিত করতে হবে শ্রোতাদেরকেই।’

মিউজিক ভিডিওতে মডেল হওয়া প্রসঙ্গে জাহিদ হাসান বলেন, ‘এক ধরনের দায়িত্ববোধ আর ভালোলাগা ও ভালোবাসা থেকে আমার এ কাজটা করা। এমনি বিভিন্ন সময় নাটকে বা চলচ্চিত্রের গানে ঠোঁট মেলাতে হয়েছে। তবে মিউজিক ভিডিও যে অর্থে বোঝানো হয়, সেভাবে কখনও করা হয়নি। বাংলাদেশের মানুষ আমাকে পছন্দ করেছেন বলেই আজ আমি জাহিদ হাসান। তাই আমি মনে করি আমার দায়বদ্ধতা আছে। সেজন্য কাজটি করা।’

দায়িত্ববোধের ব্যাখ্যা দিয়ে জাহিদ বলেন, ‘এ মিউজিক ভিডিওতে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছেন আসিফ ভাই (আসিফ ইকবাল)। তিনি পারিবারিক একজন মানুষ। তাই না-ও করতে পারছিলাম না। আবার করবো কি-না ভাবছি, এমন একটা অবস্থা। প্রীতম হাসানের সঙ্গে পরিচয় হওয়ার পর গুরুত্ব দিলাম। ওর বাবা আমাদের দেশের কিংবদন্তি গায়ক খালিদ হাসান মিলু। এ গানে ওরা দুই ভাই কাজ করেছে বলে আরেক ধরনের দায়িত্ব চলে এসেছে। আমি ওদের সিনিয়র। ওর বাবা নেই, আমরা তো আছি। এভাবে আমাদের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা থাকলে একটা জিনিস দাঁড়িয়ে যাবে। এটা আমার একান্ত অনুভূতি। আরেকটা বিষয় হলো, ওরা দুই ভাই আমার বাসায় এসে বিয়েবাড়ির উপযোগী গানের শুন্যতার বিষয়টি বোঝালো। আমিও তাদের সঙ্গে একমত। এ অবস্থায় আমাদের সবার মধ্যে এক ধরনের দায়িত্ববোধ কাজ করেছে বলেই মিউজিক ভিডিওটি তৈরি হয়েছে।’

জাহিদ হাসানের মতো ‘বেয়াইনসাব’-এর মাধ্যমে প্রথমবার মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন ধারাভাষ্যকার চৌধুরী জাফরউল্লাহ শরাফত ও রন্ধনশিল্পী কেকা ফেরদৌসী।

সংবাদ সম্মেলনে তাদেরকেও ব্যান্ড পার্টি বাজিয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়। শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বায়োস্কোপলাইভ ডটকমে মুক্তি পাচ্ছে এটি।

এ ছাড়া এটি শোনা যাচ্ছে জিপি মিউজিকে। মিউজিক ভিডিওটিতে মডেল হিসেবে আরও আছেন এ প্রজন্মের অভিনেতা সিয়াম আহমেদ, অভিনেত্রী শায়লা সাবি, মডেল শারলিনা হোসেন।

ভিডিওটি পরিচালনা করেছেন তানিম রহমান অংশু। জানা গেছে, এক মাস পর থেকে ইউটিউবসহ অন্যান্য প্ল্যাটফর্মে দেখা যাবে ভিডিওটি।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s