আবার বিয়ে করলেন আনুশেহ

জনপ্রিয় গায়িকা আনুশেহ আনাদিল। ‌‘বাংলা’ ব্যান্ডের গায়িকা হিসেবে তার জনপ্রিয়তা। ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন দলের সদস্য বুনোকে। তার সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় সাত বছর আগে। দুই সন্তান আরাশ ও রাহাকে নিয়ে একাই ছিলেন এতোদিন।

নিজের মতো জীবন বেছে নিয়েছেন আনুশেহ। গড়ে তুলেছেন ফ্যাশন হাউজ যাত্রা। নিজে আর গাইছেন না। তবে প্রতি বৃহস্পতিবারেই গুলশানে যাত্রার শো রুমের ছাদে আসর জমে গানের। এর বেশি আর কোনো খবরে নেই আনুশেহ।

তবে নতুন এক অবাক করা খবর হলো পান্ডু নামের এক ভিনদেশিকে বিয়ে করেছেন ‘ঘাটে লাগাইয়া ডিঙা’ গান খ্যাত আুনশেহ। পান্ডু নিজেও একজন গায়ক। গিটারও বাজিয়ে থাকেন। পুরো নাম সেথ পান্ডুরাঙা ব্লুমবার্গ, আমেরিকার মিশিগানের মিউজিশিয়ান। পান্ডুর সঙ্গে ঢাকায় আনুশেহ গড়ে তোলেন ‘যাত্রা বিরতি’ নামের একটি মিউজিক্যাল রেস্তোরাঁ। সেটি চলছে এখনও। আরও গড়েছেন ‘বাহক’ নামের ব্যান্ড।

এই পান্ডুকে আনুশেহ’র বিয়ের খবরটি নিশ্চিত করেছেন আনুশেহ’র মা লুবনা মরিয়ম। দুই সন্তানসহ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বর-বধূর মালা বদলের ছবি লুবনা নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছেন।

প্রখ্যাত এই নৃত্যশিল্পী ও গবেষক গতকাল শুক্রবার দুপুরে তার ফেসবুক দেয়ালে আনুশেহ-পান্ডু দম্পতির মালা বদলের ছবিসহ শুভ কামনা জানিয়ে একটি পোস্ট দেন। লেবাননের বিখ্যাত কবি কাহলিল জিবরানের ‘লাভ’ কবিতা থেকে কয়েকটি লাইন তুলে ধরেন সেই পোস্টে। কথাগুলো এমন, ‘সর্বদাই তুমি একসঙ্গে থাকতে পারো। এমন কি খোদাকে নিয়ে নীরব ভাবনাতেও। তবুও এই একসঙ্গে থাকার মাঝেও কিছুটা দূরত্ব রেখো এবং স্বর্গের বাতাসকে নিজের মধ্যে বইতে দিও। একে অপরকে ভালোবাস কিন্তু ভালোবাসার কোনো বন্ধন তৈরি করো না; বরং এটাকে তোমার হৃদয়ের তীরের মাঝে বহমান সমুদ্রের মতো থাকতে দিও। একে অপরের কাপ পূর্ণ করো কিন্তু একই কাপ থেকে পান করো না। একে অপরকে রুটি দাও কিন্তু একই রুটিতে উভয়েই কামড় দিও না।’

তিনি আরো লেখেন, ‘একসঙ্গে নেচে-গেয়ে আনন্দ করো, কিন্তু একে অপরকে একটু একা থাকতেও দিও। যেমন লিউটসের তারের মতো নিঃসঙ্গ তবুও তাদের কম্পন একই সুর দেয়। তোমার হৃদয় দাও কিন্তু একে অপরের হৃদয় ধরে রেখো না। শুধু ঈশ্বরের হাতই তোমার হৃদয়কে ধারণ করতে পারবে। এবং একসঙ্গে উঠে দাঁড়িয়ো কিন্তু খুব কাছাকাছি নয়: মন্দিরের পিলারগুলোও আলাদা থাকে এবং ওক ও সাইপ্রাস গাছ একে অপরের ছায়ায় বেড়ে ওঠে না।’

তবে কবে কখন বিয়ে হয়েছে এ নিয়ে মুখ খোলেননি লুবনা মরিয়ম ও আনুশেহ। ধারণা করা হচ্ছে ১৬ ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরেই তারা দুজন পারিবারিকভাবে মালা বদলের আনুষ্ঠানিকতা সারেন।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s