পিআর থেকে প্রচারণা? ৩ তথ্য জেনে নিন

পাবলিক রিলেশন বা পিআর-এর বিষয়গুলো অনেকেই সঠিকভাবে ধরতে পারেন না। আর এ বিষয়টি নিয়ে প্রচুর বিভ্রান্তিও রয়েছে।

যদিও বিষয়টি তেমন হওয়া উচিত নয়। এক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় মনে রাখা উচিত। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে আইএনসি।
পিআর ও প্রমোশনের মধ্যে বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে। পিআর হলো প্রমোশনের পরবর্তী ধাপ। নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করার প্রয়োজনীয়তা ব্যবসায়ীমাত্রই প্রয়োজনীয়। আর এতে দোষের কিছু নেই। কারণ নিজেকে আপনি যদি সঠিকভাবে উপস্থাপন না করেন তাহলে আপনার বহু গুণই লোকচক্ষুর অন্তরালে থেকে যেতে পারে।
আর আপনার হাতে যদি বড় কোনো সংবাদ থাকে তাহলে এটি সবাইকে জানিয়ে দেওয়া যেতে পারে। আর এ কাজে সহায়ক হয়ে উঠতে পারে পিআর। এক্ষেত্রে বড় বিষয়টিকেই পিআর বলা হয়। এটি মানুষকে কোনো বিষয়ে তার ধারণা পরিবর্তনে সহায়তা করতে পারে।
কোনো পণ্য কিংবা প্রতিষ্ঠানের প্রচারণা কনটেন্ট মার্কেটিং পরিকল্পনা ছাড়া কাজ করবে না। আর এক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণের বিকল্প নেই।
পিআর-এর সীমাবদ্ধতা
আপনি পিআর-এর মাধ্যমে অসংখ্য বিষয় গ্রাহক বা ক্রেতাদের নিকট তুলে ধরতে পারবেন। আর এতে আপনার গ্রাহকেরা বিভ্রান্ত হয়ে যেতে পারেন। তারা অসংখ্য দৃষ্টিভঙ্গি ও বিশ্লেষণ দেখতে পাবেন কিন্তু তা থেকে আপনার বক্তব্য বুঝতে নাও পারেন।
কিভাবে পিআরকে সফল করবেন?
পিআরকে একটি সেতু তৈরি হিসেবে দেখতে হবে। আপনি যদি আপনার ব্র্যান্ডকে পরিচিত করাতে চান তাহলে আপনার প্রতিষ্ঠান ও গ্রাহকের মাঝে একটি সেতু হিসেবে কাজ করতে পারে পিআর। আপনি এর মাধ্যমে অপর পক্ষের আচরণ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে পারেন। তবে মনে রাখতে হবে, আপনার সেই সেতু যেন মজবুত হয়। অন্যথায় বিষয়টি কার্যকর নাও হতে পারে। কিন্তু কী উপায়ে এ বিষয়টি করবেন? এক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয়ে জোর দিন-
১. জিজ্ঞাসা করুন “কেন”?
এ প্রশ্নটি পিআরের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনি কেন তার বা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন, এ বিষয়টি জেনে রাখতে হবে। অন্যথায় আপনার সব প্রচেষ্টাই মাটি হয়ে যাবে। গ্রাহক আপনার কথার কোনো স্পষ্ট অর্থ খুঁজে পাবেন না।
আপনি যদি আপনার ব্যবসার একটি বড় পরিবর্তন গ্রাহককে জানাতে চান তাহলে সে বিষয়টি তাকে জানিয়ে দিন। এক্ষেত্রে সঠিক উপায়ে নির্দিষ্ট লক্ষ্য অনুযায়ী এগোলে পিআর খুবই কার্যকর হবে।
২. সঠিক উপকরণ নির্ণয় করুন
বিভিন্ন উপায়ে আপনি পিআর করতে পারেন। তবে কোন উপকরণ সবচেয়ে কার্যকর হবে, তা জেনে নিন। এক্ষেত্রে আপনার জেনে রাখতে হবে বিভিন্ন উপকরণ ও তার কার্যকারিতা। এছাড়া কী কারণে কোন উপকরণ ব্যবহার করবেন, তাও জেনে রাখার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।
৩. হিসাব করুন
কোন উপায়ে এগোলে আপনার কী ধরনের লাভ হতে পারে, তার স্পষ্ট হিসাব করুন। পিআরের ক্ষেত্রে স্বল্পমেয়াদী লক্ষ্য সাধারণত কাজ করে না। এক্ষেত্রে আপনার প্রয়োজন কোন কোন কনটেন্টে কতখানি সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে তার স্পষ্ট হিসাব করা। এরপর সে হিসাব অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে হবে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s