ঘর থেকে গরম তাড়াতে যা করবেন

গরমের দিন চলে এসেছে। এসময় যতটা সতেজ থাকা যায় ততই গরমের অনুভূতি কম হবে। নিজেকে সতেজ রাখার পাশাপাশি এসময় চারপাশের পরিবেশও সুন্দর রাখতে হবে। ঘরদোর পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি বেছে নিতে পারেন বিশেষ কিছু কৌশল। তাতে গরম অনেকটাই কম অনুভূত হবে। গরম দূর করতে ঘর থেকে অপ্রয়োজনীয় জিনিস সরিয়ে ফেলুন। নজর রাখুন, ঘরে যেন খবরের কাগজ স্তূপাকৃতভাবে না থাকে। সিল্কের জিনিসপত্র সরিয়ে ফেলুন। মেঝেতে উলের কার্পেট পাতা থাকলে তুলে ফেলুন। কাচের পাত্রে বা পাথরের থালা অথবা বাটিতে পানি ঢালুন। পানিভর্তি পাত্রে কিছু পাথর রাখুন। কিছু ফুল দিয়ে দিন। এবার যে দরজা বা জানলা দিয়ে সবচেয়ে বেশি বাতাস আসে, তার সামনে রেখে দিন।

টেবিলফ্যানের সামনে বাটিভর্তি বরফ রাখুন। এটি খুব সহজ পদ্ধতি। এতে বরফে লেগে ফ্যানের বাতাস আরও ঠান্ডা হবে এবং সেই ঠান্ডা বাতাস ঘরে ছড়িয়ে যাবে।

ঘরে অযথা বাতি জ্বালিয়ে রাখবেন না। যত অত্যাধুনিক বৈদ্যুতিক ল্যাম্পই জ্বালান না কেন, অপ্রয়োজনে জ্বালিয়ে রাখবেন না। ল্যাম্পের আলো ঘরের বাতাসকে গরম করে তোলে। সম্ভব হলে ঘরে কম পাওয়ারের আলো লাগান।

ঘরে ক্রস ভেন্টিলেশন রাখুন। মানে যে দিকের দরজা বা জানলা খুলবেন, তার বিপরীতের দরজা এবং জানালা খুলে রাখুন। এতে ঠান্ডা বাতাস ঘরে প্রবেশ করবে এবং বিপরীত দিক দিয়ে গরম বাতাসকে বের করে দেবে।

চালভর্তি বালিশ তৈরি করুন। চাল খুব ঠান্ডা থাকে। তাই গরমকালে চালের তৈরি বালিশ মাথায় দিতে পারেন। এতে চোখে-মুখে ঠান্ডার সতেজতা পাবেন। বালিশে চাল ভরার আগে এর মধ্যে কিছু নিমপাতা মিশিয়ে দিন। এতে চালে পোকা হবে না।

ইলেক্ট্রিক প্লাগ অন রাখবেন না। প্লাগে কোনো গ্যাজেট গুঁজে রাখলে তার কাজ শেষ হতেই সুইচ বন্ধ করে দিন এবং ইলেক্ট্রনিক গ্যাজেটকে প্লাগ থেকে খুলে নিন।

ঘরে অর্কিড জাতীয় গাছ রাখুন। গাছ ঘরের মধ্যে থাকা গরম বাতাস থেকে কার্বনডাই-অক্সাইড সংগ্রহ করে সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়া চালু রাখে। এতে ঘরের গরম বাতাস হাল্কা হয় এবং তাতে প্রচুর পরিমাণে জলকণা সঞ্চিত হয়। তাই ঘরে ঠান্ডা থাকে।

বারান্দায় বা জানলায় খসখস অথবা বাঁশের পর্দা ব্যবহার করুন। এতে পানি দিয়ে দিন। এমন ঠান্ডা অনুভব করবেন যে, এসির কথা ভুলে যাবেন।

একটি প্লাইউডে ছোট ছোট গর্ত করে তাঁর মধ্যে প্লাস্টিক বোতল গুঁজে দিন। এর আগে প্লাস্টিকের বোতলগুলিকে মাঝখান থেকে কেটে নিতে হবে। বোতলের উপরের দিকের অংশ কাজ লাগবে। বোতলের ছিপিতে ছিদ্র করে দিন। এরপর অর্ধেক কাটা বোতলগুলিকে প্লাইউডে করা গর্তগুলিতে জুড়ে দিন। জানলার সঙ্গে প্লাইউডকে সাঁটিয়ে দিন। বোতলের মধ্যে থাকা গরম বাতাস ছিপির ছোট ছিদ্র দিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করবে। কিন্তু, ঠান্ডা বাতাস হালকা হওয়ায় আগে ঘরে প্রবেশ করবে।

চেষ্টা করুন ঠান্ডা ফল খেতে। প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন। ঠান্ডা লিকার চা-এর মধ্যে একটু বরফ, লেবু এবং কারি পাতা মিশিয়ে নিন। এরপর তা মাঝে মাঝে পান করুন। পারলে রোজ তরমুজ খান। কোল্ড কফিও ট্রাই করতে পারেন।

একটা ব্র্যাকেটে বা ঝুড়িতে টবে লাগানো গাছ দিয়ে ভর্তি করুন এবং দরজা বা জানলার সামনে রেখে দিন।

ছাদের রঙ সাদা করে ফেলুন। দেখবেন, গরম অনেকটা কমে গিয়েছে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s