প্রভাসের পারিশ্রমিক শুনে ঘুম হারাম করনের

‘বাহুবলী’ এবং ‘বাহুবলী দ্য কনক্লুশন’ সিনেমায় দারুণ অভিনয় দিয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেছেন দক্ষিণী সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা প্রভাস।
তার জনপ্রিয়তা একেবারে তুঙ্গে। ‘বাহুবলী’ সিক্যুয়ালের পর বলিউডের তাবড় পরিচালকদের অনেকেই এখন প্রভাসকে নিয়েই কাজ করতে চাইছেন।
তার মধ্যে অন্যতম হলেন করন জহর। তবে প্রবল ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও প্রভাসকে নিয়ে কাজ করতে পারছেন না করন জোহর!
সম্প্রতি বলিউডে এমনই গুঞ্জন শুরু হয়েছে।
ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, প্রভাস যে পরিমাণ পারিশ্রমিক দাবি করছেন তা শুনেই ঘুম হারাম হয়ে গেছে করনের। করন জহরের হাত ধরে বলিউডে ডেবিউ করার জন্য প্রভাস নাকি ২০ কোটি পারিশ্রমিক চাইছেন।
কিন্তু, প্রভাসকে ওই টাকা পারিশ্রমিক দিতে নারাজ করন। আর সেই কারণেই নাকি করনের হাত ধরে প্রভাসের বলিউড ডেবিউ পিছিয়ে যাচ্ছে।
প্রসঙ্গত, ‘বাহুবলী’ সিরিজের সঙ্গে চুক্তি থাকায় দীর্ঘদিন অন্য কোনো সিনেমায় দেখা যায়নি প্রভাসকে। তবে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন সিনেমার কাজে হাত দিয়েছেন তিনি।
প্রভাস বর্তমানে ‘সাহো’ সিনেমার শুটিংয়ে ব্যস্ত। সিনেমায় একেবারে ভিন্নলুকে হাজির হবেন প্রভাস। সিনেমায় তার বিপরীতে দেখা যাবে আশিকিখ্যাত নায়িকা শ্রদ্ধা কাপুরকে।
Advertisements

খাওয়ার পর যে কাজগুলো কখনো করবেন না

দুপুরে ডায়েট মেনে খাচ্ছেন, রাতেও বেশ নিয়ম মেনেই খাওয়াদাওয়া করছেন, তা সত্ত্বেও শরীর যেন কিছুতেই ভাল যাচ্ছে না। শরীর ভাল রাখতে কী করবেন, বুঝে উঠেতেই যেন পারছেন না।

এমন যদি হয়, তাহলে দুপুরে, রাতে কিংবা সকালে যে কোনও সময় ভরপেট খাওয়াদাওয়ার পর বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলুন।

যেমন খাওয়ার পর পরই কখনও ধূমপান করবেন না। খাওয়ার পর যদি আপনি ধূমপান করেন, তাহলে যে প্রয়োজনীয় জিনিস আপনার শরীরে প্রবেশ করেছিল, তার পুষ্টিগুণ কিন্তু নামতে শুরু করে দেবে। তাই খাওয়ার পর সিগারেটকে বলুন না। গবেষকদের একাংশ বলছেন, খাওয়ার পর সিগারেট খেলে তা ক্যান্সারের প্রবণতা অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়।

অনেকেরই খাওয়াদাওয়ার পর চা পানের অভ্যাস আছে। বিশেষত রাতের খাবারের পর। কিন্তু, খাওয়াদাওয়ার পর চা খেলে হজমের গণ্ডগোল হয়। অনেকেরই ধারণা রয়েছে, খাওয়ার পর ফল নাকি ভাল।

কিন্তু, খাওয়াদাওয়ার পর ফল খাওয়ার অভ্যেসও সঠিক নয়। যদিও আপনার হজমের গণ্ডগোল, লিভারের সমস্যা থাকে, তাহলে কখনওই খাওয়ার পর (বিশেষ করে মিল বা ডিনার) ফল খাবেন না।

পেটপুরে খাবার পর কখনও সঙ্গে সঙ্গে ঘুমোতে যাবেন না। গবেষণা বলছে, খাওয়ার পর পরই ঘুমোতে গেলে, খাবার কম হজম হয়। ফলে, হৃদরোগের সম্ভাবনা প্রবল হয়। খাওয়ার পর স্নান করতে যাবেন না। এতেও শরীরের বেশ ক্ষতি হয়।

সালমান-শাহরুখের সাথে প্রথম পরিচয়ের কাহিনী বললেন আমির

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সালমান ও শাহরুখের সঙ্গে প্রথম পরিচয়ের মজার অভিজ্ঞতার কথা বললেন বলিউড অভিনেতা আমির খান। সম্প্রতি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানালেন, অপর দুই খান- শাহরুখ ও সালমানর সঙ্গে তার প্রথম পরিচয়ের গল্প।

মিড ডে’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আমির বলেন, আমি যখন সালমান খানকে প্রথম দেখি তখন আমরা কেউই তারকা হয়ে উঠিনি। পরিচালক আদিত্য ভট্টাচার্যের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমায় অভিনয়ের সুবাদে তার বাড়িতে গিয়েছিলাম। পাশেই একটি লনে সাইকেল চালাচ্ছিলেন সালমান। তার সঙ্গে সেখানেই আমার প্রথম পরিচয়। আলাপের সূত্রেই জানতে পারি ছোটবেলায় সালমান আর আমি একই স্কুলে, একই ক্লাসে এক বছর পড়েছিলাম। সম্ভবত সেটা ছিলো গ্রেড-টু। কিন্তু আমরা তখন কেউ কাউকে চিনতাম না।

সাক্ষাৎকারে আমির বলেন, শাহরুখের সঙ্গে আমার প্রথম পরিচয় হয় ১৯৯২ সালে। তখন শাহরুখ সবেমাত্র জুহি চাওলার সঙ্গে ‘রাজু বান গয়া জেন্টলম্যান’ সিনেমার শুটিং শুরু করেছে।

সে সময় আমি আর জুহিও নতুন একটি সিনেমার শুটিং করছিলাম। শুটিং সেটেই তার সঙ্গে আমার প্রথম পরিচয় হয়। তখন শাহরুখের বলিউড অভিষেক সিনেমা ‘দিওয়ানা’ মুক্তি পায়নি এবং বলিউড অভিনেতা হিসেবে তাকে কেউ চিনতো না। প্রথম পরিচয়ে তাকে (শাহুরখ খানকে) আমার বেশ মিশুকে ও হৃদয়বান বলে মনে হয়েছিলো।

মালায়লাম সিনেমার রিমেক হবে ‘সিংঘাম থ্রি’

রোহিত শেট্টি ও অজয় দেবগন বলিউডের বলিষ্ঠ জুটি। ‘সিংঘাম’ ও ‘গোলমাল’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে এই জুটি।
২০১১ সাল থেকে ২০১৪ সাল এই তিন বছরে ‘সিংঘাম’র দুইটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। ২০১১ সালে ‘সিংঘাম’ এবং ২০১৪ সালে ‘সিংঘাম রিটার্নস’ সুপার হিট হয়। সিনেমায় সাহসী এক পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অজয়।
এই দুই সিনেমার ব্যাপক জনপ্রিয়তার পর ‘সিংঘাম থ্রি’ বানানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন রোহিত শেট্টি। খবর ডেকান ক্রনিকলের।
খবরে বলা হয়, মালায়লাম সিনেমা ‘অ্যাকশন হিরো বিজু’র রিমেক হবে ‘সিংঘাম থ্রি’।  ‘অ্যাকশন হিরো বিজু’ সিনেমায় অভিনয় করেন নিভিন পাওলি।
ট্রেড এনালিস্ট রমেশ বালা এক টুইট বার্তায় জানান, সম্ভবত ‘সিংঘাম থ্রি’ মালায়লাম সিনেমা ‘অ্যাকশন হিরো বিজু’র রিমেক হবে।
এ বিষয়ে রোহিত শেট্টি বলেন, দর্শকের চাহিদার বিষয়টি মাথায় রেখে আমি সিনেমা নির্মাণ করি। সিংঘাম ও গোলমাল তারই ফল। সিংঘাম এবং সিংঘাম রিটার্নস এর ব্যাপক জনপ্রিয়তার কারণেই সিংঘাম থ্রি তৈরির চিন্তা নিয়েছি। যতদিন পর্যন্ত সিংঘাম এবং গোলমালের দর্শক চাহিদা থাকবে ততদিন এই সিরিজগুলো চলতেই থাকবে। দর্শক যখন চাইবে না তখন আর এই সিরিজ বানাবো না।
তিনি বলেন, সিংঘাম একটি বড় ব্রান্ড। এটি আমাদের যথেষ্ট সম্মান দিয়েছে। আমরা এর আরও সিক্যুয়াল বানাতে চাই।
প্রসঙ্গত, রোহিত-অজয় বর্তমানে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই আছেন। গত দিওয়ালিতে মুক্তি পেয়েছে গোলমাল সিরিজের সিনেমা ‘গোলমাল এগেইন’। এক সপ্তাহে বক্স অফিসে ১৫০ কোটি রুপি আয় করেছে।
বলিউডের মি. পারফেকশনিস্ট আমির খানকে টেক্কা দিয়েছেন অজয়। আমিরের ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ এবং অজয়ের ‘গোলমাল এগেইন’ একই সময়ে মুক্তি পায়। তবে বক্স অফিসের যুদ্ধ আমিরকে হারিয়ে দিয়েছেন অজয়।

মেদ কমাতে ভরসা রাখুন এই খাবারে

ওজন কমানোর জন্য শাক, সবজি খেয়েই দিন কাটিয়ে দিচ্ছেন? তাও ফল পাচ্ছেন না? ভাত খাওয়া তো প্রায় ছেড়েই দিয়েছেন। রুটিও খাচ্ছেন, তার পরিমাণও কম।

যদি এমন অবস্থা হয়, তাহলে সত্যি বেশ চিন্তার। পরামর্শ নিয়ে ফল, সবজি খাওয়া শুরু করলেন, অথচ কিছু হচ্ছে না। এমন যদি হয়, তাহলে এমন কিছু ফল এবং সবজির কথা জেনে নিন, যা খেলে ওজন কমবে আপনার। কারণ ওই সব ফল এবং সবজিতে যে ক্যালোরির পরিমাণ এক্কেবারে কম।

জানা যাচ্ছে, ওজন কমানোর জন্য আপনি বাঁধাকপি খেতে পারেন। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ বাঁধাকপিতে ক্যালোরি খুব কম থাকে বললেই চলে।

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য ফুলকপিও খেতে পারেন। কারণ, এই সবজিতেও ক্যালোরির পরিমাণ বেশ কম। ফুলকপি যদি সেদ্ধ করে খেতে পারেন, তাহলে ওজন ঝরবে।

কুমড়া খেলেও ওজন ঝরবে। ভিটামিন এ সমৃদ্ধ কুমড়ো সেদ্ধ করে, তার উপর যদি লবণ ছড়িয়ে খেতে পারলে পেটও যেমন বাড়বে তেমনি ওজনও কমবে।

স্ট্রবেরি খেতে অনেকেই বেশ পছন্দ করেন। আর তাই পছন্দের খাবারকে যদি প্রয়োজন বানিয়ে ফেলেন, তাহলে চটপট ওজন ঝরতে পারে আপনার।

প্রতিদিন টমেটো খাওয়া অভ্যাস করলেও ওজন কমতে পারে। ভুড়ি কমাতে তাই প্রতিদিনের সালাতে টমেটো রাখলে, উপকার পাবেন আপনি। পাশাপাশি স্বাস্থ্য ভাল রাখতেও আপনাকে সাহায্য করবে টমেটো।

বিখ্যাত তারকাদের মৃত্যুর আগে তোলা শেষ ছবি

‘মৃত্যু’ শব্দটির সঙ্গে মিশে আছে এক অজানা ভয়। কিন্তু যারা জেনে-বুঝে মৃত্যুকে বরণ করে নিচ্ছেন, তাদের মানসিকতার হদিস পাওয়া কী আর সোজা কথা! তবে মৃত্যুর আগ মুহূর্তে তাদের চেহারা দেখে হয়তো মনোবিজ্ঞানীরা অনেক কিছুই বের করতে পারবেন।

এমনকি সাধারণ মানুষও কারো মৃত্যুর আগের ছবি দেখামাত্র একটু চমকে উঠবেন। চমকপ্রদ কিছুই হয়তো নেই, তবুও এগুলো কিছু মানুষের মৃত্যুর আগের শেষ ছবি।

জন লেনন


বিশ্বখ্যাত ব্যান্ড বিটলসের প্রতিষ্ঠাতা জন লেননের এই ছবিটি তার জীবদ্দশার শেষ ছবি। রেকর্ডিং স্টুডিও থেকে ম্যানহাটানের অ্যাপার্টমেন্টে ফেরার সময় তোলা ছবি। তার পাশের মানুষটি মার্ক ডেভিড চ্যাপম্যান। এই মানুষটিই জনকে গুলি করেছিল।

পল ওয়াকার


ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াসের এই বিখ্যাত তারকা দ্রুতগতিতে গাড়ি চালাতে গিয়েই মৃত্যুবরণ করেন। ছবির গাড়িতে চড়েই তিনি রওনা দিচ্ছিলেন। তখন তোলা ছবি।

যাওয়ার পথেই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান তিনি।

মাইকেল জ্যাকসন


কিং অব পপ দুচোখ বুজেছিলেন ২০০৯ সালের ২৫ জুন। অতিমাত্রায় ঘুমের ওষুধ গ্রহণের ফলে মৃত্যু ঘটে। লস অ্যাঞ্জেলসের স্ট্যাপলস সেন্টারে ‘দিস ইজ ইট’ শোয়ের সব টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে। ওই শো-এ মঞ্চে চর্চার সময় তোলা ছবি। এটাই শেষ ছবি।

হুইটনি হিউস্টোন


বেভার্লি হিল্টনে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের রিহার্সেল পার্টি থেকে থেকে ফেরার পথে আলোকচিত্রীর ক্যামেরায় এভাবেই ধরা পড়েন হুইটনি হিউস্টোন। এর দুদিন পরেই ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি হুইটনির বাসার বাথটাবে পাওয়া যায় তার মৃতদেহ। পপ-সৌল সংগীত জগতের অসাধারণ জনপ্রিয় শিল্পী ছিলেন হুইটনি হিউস্টন৷ বহুমুখি প্রতিভার অধিকারী এই সংগীত তারকা পেয়েছিলেন আকাশচুম্বী সাফল্য ও স্বীকৃতি৷

৮০ এবং ৯০’এর দশকে হুইটনি হিউস্টন ছিলেন বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় নারী সংগীত শিল্পী। ১৯৮৫ সালে তাঁর প্রথম অ্যালবাম ‘হুইটনি হিউস্টন’ তাঁকে এনে দেয় বিশ্বব্যাপী খ্যাতি এবং তাঁর উঁচু সুরেলা কণ্ঠে ‘ব্যালেড’ আঙ্গিকের গান জয় করে নেয় লক্ষ মানুষের হৃদয়।

শাহরুখ-গৌরীর প্রেমের শুরুটা যেমন ছিল

সালটা ১৯৮৪। এক অনুষ্ঠানে প্রথম দেখা শাহরুখ আর গৌরীর।

এক বন্ধুর মাধ্যমে গৌরীর কাছে প্রস্তাব পাঠালেন শাহরুখ, তোমার সঙ্গে একটু নাচব!” অভিনেতা অনুপম খের সঞ্চালিত একটি অনুষ্ঠানে শাহরুখ জানিয়েছিলেন, গৌরী প্রথম নারী, যার সঙ্গে আমি নাচের প্রস্তাব দিয়েছিলাম, ফোন নম্বর চেয়েছিলাম। হতাশ করেছিলেন গৌরী। শাহরুখের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

শাহরুখের সঙ্গে মিশতেও চাননি। তাই সেদিন বানিয়ে বানিয়ে বলেছিলেন, তিনি তাঁর প্রেমিকের জন্য অপেক্ষা করছেন। কিন্তু পরে জানা যায়, গৌরীর অপেক্ষাটি ভাইয়ের জন্য। জানতে পেরে শাহরুখ নাকি গৌরীকে জানান, তিনিও তাঁর ভাই হতে চান। এতে কাজ হয়। এগিয়ে আসেন গৌরী।

শুরু হয় দুজনের প্রেম। এভাবে কেটে যায় পাঁচটি বছর। একটু বেশিই ভালোবাসতেন শাহরুখ। এটা করা যাবে না, ওখানে যাওয়া যাবে না, ওর সঙ্গে কিসের এত কথা এরকম চোখরাঙানি চলত নিয়মিত। একদিন রেগে যান গৌরী। কোনও কিছু না বলে বন্ধুদের সঙ্গে মুম্বাই চলে যান। উপায় না দেখে শেষমেশ গৌরীর মাকে সব খুলে বলেন। প্রথমে একটু রেগে গেলেও একটা সময় মন গলে। শাহরুখের হাতে কিছু টাকা দিয়ে বলেন, খুঁজে নিয়ে আসতে গৌরীকে।

এত বড় শহরে গৌরীকে খুঁজে বেড়ানো সহজ ছিল না। হঠাৎ মাথায় এল, গৌরী সমুদ্র ভালোবাসে। সমুদ্রের পাড়ে কোথাও পাওয়া যায় কি না। যেই ভাবনা, সেই কাজ। এক বিকেলে সমুদ্রসৈকতে হাঁটতে হাঁটতে পাওয়া গেল গৌরীকে। গৌরীকে দেখে শাহরুখের কান্নায় মন গলে গৌরীর।

তবে মুসলমান শাহরুখের সঙ্গে বিয়ে হওয়া সহজ ছিল না ব্রাহ্মণ পরিবারের কন্যা গৌরীর। শোনা যায়, গৌরীর বাবা-মার মন জয় করতে হিন্দু নাম ব্যবহার করতেন শাহরুখ। ততদিনে শাহরুখের বলিউডে কাজ শুরু হয়ে গেছে। ১৯৯১ সালের অক্টোবরে বিয়ে করেন তাঁরা।

দক্ষিণী নায়িকাদের ‘মোটা’ বললেন হিনা, জবাব দিলেন হংসিকা

হায়েস্ট পেইড টেলি-অভিনেত্রীদের অন্যতম হিনা ‘বিগ বস’-এ গিয়ে নানা বিতর্কিত কথা বলেছেন। কিন্তু এই কথাটি বলার পরে মুতোড় জবাব এল দক্ষিণেরই নায়িকার কাছ থেকে।
হিনা খান ও হংসিকা মোতওয়ানি।

হিনা খান-এর অভিনয়দক্ষতা এবং সৌন্দর্য নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। মাত্র একটি ধারাবাহিকই তাঁকে রাতারাতি বিখ্যাত করেছে। এক ঝটকায় তাঁকে নিয়ে এসেছে হিন্দি টেলিজগতের প্রথম সারিতে। ‘বিগ বস সিজন ১১’-এ এসে বেশ কিছু বিতর্কিত কথাবার্তা বলেছেন হিনা। তার মধ্যে দক্ষিণী সিনেমা নিয়ে একাধিক মন্তব্য রয়েছে।

তিনি তাঁর সহ-প্রতিযোগীদের সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে বলেন যে দক্ষিণ থেকে দু’টি ছবির অফার তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন কারণ তাঁকে ওজন বাড়াতে বলা হয়েছিল। মুম্বইয়ের একটি গসিপ ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এর পরেই হিনা দক্ষিণের নায়িকাদের চেহারা নিয়ে নানা কথা বলতে থাকেন। সোজাসুজি তাঁদের ‘মোটা’ বলেন হিনা।

হিনার এই মন্তব্যের ভিডিওটি টুইটারে আপলোড করে সমালোচনা করেন এক ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের লেখিকা। বিষয়টি চোখে পড়ে দক্ষিণী নায়িকা হংসিকা মোতওয়ানির। সঙ্গে সঙ্গেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন তিনি। একের পর এক টুইট করে তীব্র বিরোধিতা করেন হিনার এই মন্তব্যের। তিনি বলেন, ‘‘হিনা কি জানেন না যে বলিউডের বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীই দক্ষিণ ভারতের ছবিতে অভিনয় করেন… দক্ষিণ ভারতের অভিনেত্রী হিসেবে আমি আমার ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে অত্যন্ত গর্বিত!’’

হিন্দি ছবি ‘লিঙ্গ বৈষম্য ও যৌনতা নির্ভর’ ৪ হাজার ছবির গবেষণার ফল

বলিউড চলচ্চিত্র যৌনতা নির্ভর- এমন অভিযোগের সঙ্গে এবার যুক্ত হয়েছে এর লিঙ্গ বৈষম্যমূলক বৈশিষ্ট্যও। অন্তত একটি গবেষণার তথ্যে বলা যায় এ কথা প্রমাণিত হয়ে যাচ্ছে।

আইবিএমের করা ৪ হাজার হিন্দি চলচ্চিত্রের ওপর গবেষণা এবং দিল্লি ভিত্তিক দুটি প্রতিষ্ঠানের গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষণায় উল্লেখ করা হয়- বিভিন্নভাবে যৌনতা আর লিঙ্গ বৈষম্য প্রদর্শিত হয়, যেমন বিভিন্ন পেশা, পাঠ্যক্রমে জড়িত কর্ম, ছবির বর্ণনা, চরিত্রের বৈশিষ্ট্যেও লিঙ্গ বৈষম্য ফুটে ওঠে। এভাবেই বিভিন্ন রসদে হিন্দি ছবির ভেতর যৌনতার সন্ধান মেলে। গবেষণায় কঙ্গনা রানাউতের একটি গানের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। যেটা এই গবেষণাকেই সমর্থন করছে।

১৯৭০ সাল থেকে ২০১৭ পর্যন্ত মুক্তি পাওয়া ৪ হাজার হিন্দি ছবির ওপর গবেষণা চালানো হয়। উইকিপিডিয়ার আইবিএম ডাটাসেটের গবেষণায় প্রতিটি চলচ্চিত্রের খুঁটিনাটি বিষয় যেমন- ছবির টাইটেল, কুশীলবদের তথ্য, সাউন্ডট্র্যাক ও পোস্টারের ওপর গবেষণা ছাড়াও ২০০৮ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত মুক্তিপ্রাপ্ত ছবির ট্রেলারও বিশ্লেষণ করে দেখেছেন গবেষকেরা।

চলচ্চিত্রে যদিও নারী চরিত্রগুলো ছোট হয়, তবুও দর্শকদের আকৃষ্ট করার জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতারা তাদের অভিনব ভাবে উপস্থাপন করেন। এমনটাই দাবি গবেষকদের।

যৌনতা প্রদর্শনের পাশপাশি লিঙ্গ বৈষম্যের বিষয়টি প্রচ্ছন্নভাবে চলে আসছে- এমনটাই দাবি গবেষকদের।

গবেষকরা বাণিজ্যিক হিন্দি চলচ্চিত্রের বিষয়টিও উল্লেখ করেছেন। তারা বলছেন,  কখনো নারী চরিত্রকে ‘আদর্শ নারী’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে- যারা বিনয়ী, আত্ম-উৎসর্গীকৃত, পবিত্র এবং নিয়ন্ত্রিত। একইসাথে ‘খারাপ নারী’ যৌন আক্রমনাত্মক, আত্মত্যাগী নয় ও পশ্চিমা দুনিয়ার সংস্কৃতিতে অভ্যস্ত এমন চরিত্রেও দেখানো হচ্ছে মেয়েদের।

আইবিএম এর নিশথা মাদান বলেন, অভিনেত্রীদের নিইয়ে প্রচারকার্য বেশি চালানো হয়, কিন্তু যখন প্রকৃত গল্প আসে তখন দেখা যায় আসলে অভিনেত্রীরা থাকেন সাইডলাইনে।

তবে কিছু ক্ষেত্রে নারীদের চরিত্রায়ণে উন্নতিরও দেখা মেলে। ১৯৭০ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত এই সময়ের মধ্যে বলিউডে বেশকিছু নারীকেন্দ্রিক চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়েছে। মেয়েদেরকে চরিত্র নিয়ে লেখা কাহিনি প্রধান চরিত্রের রুপ পেয়েছে। সত্তরের দশকে যা ৭ ভাগ ছিল এই সময়ে এসে তা ১১.৯ শতাংশে পৌঁছেছে।

তরুণ উদ্যোক্তা তামরিন-এর অনলাইন কাস্টমাইজড টিশার্ট শপ “Tattoo Style”

লাজুক শান্তশিষ্ট যে মেয়েটি ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়তো, যেই মেয়েটি সবার থেকে নিজেকে আড়াল করে রাখতো, সেই মেয়েটি আজ একজন সফল তরুণ উদ্যোক্তা। কথা হচ্ছে ‘ট্যাট্টু স্টাইল’ এর উদ্যোক্তা খানম তামরিন জাহা কে নিয়ে। তার নিজের হাতে করা কাস্টমাইজড ডিজাইনের টি শার্ট দিয়ে গড়ে তুলেছেন অনলাইন শপ ‘Tattoo Style’ । বয়সে তরুণ, বিশ্ববিদ্যালের গণ্ডিও এখনো শেষ হয়নি। তবু নিজের মেধা ও পরিশ্রম দিয়ে পড়াশুনার পাশাপাশি দক্ষতার সাথে পরিচালনা করছেন নিজের ব্যবসা। তার এ পথ চলার গল্প নিয়ে আজ মুখোমুখি হয়েছেন BD Gossips এর সাথে।

BD Gossips: কেমন আছেন? ব্যস্ততা কেমন?

তামরিন: ভালো আছি। পড়াশুনার বাহিরে আমার আসলে পুরো সময় কেটে যায় Tattoo Style এর পিছনেই।

BD Gossips: আপনার অনলাইন শপ Tattoo Style এর শুরুটা কিভাবে হল?22657314_1876200485727629_239748780_n

তামরিন: শুরুটা করেছিলাম একদমই শখের বশে। আমি আকাআকি করতে খুব ভালবাসি। পরিবার-বন্ধুবান্ধবদের শখ করে কাস্টমাইজড টিশার্ট ডিজাইন করে দিতাম। তারা সেই টিশার্ট গুলো খুব পছন্দ করতো। মূলত সেখান থেকেই শুরু।

BD Gossips: কাস্টমাইজড টিশার্ট ডিজাইনটা আসলে কি?

তামরিন: সাধারণত কি হয়, সবাই বিভিন্ন টিশার্ট এর কালেকশন থেকে বাছাই করে কোন টিশার্ট কিনে। দেখা যায় একি ডিজাইনের টিশার্ট অনেকেই পরছে। আর আমার কাস্টমাইজড ডিজাইন এই গতানুগতিক ধারা থেকে একটু ব্যতিক্রম। আমি কাস্টমারদের তাদের পছন্দ অনুযায়ী ডিজাইন করে দেই। কাস্টমারদের পছন্দ বলেতে, তারা যে রকম চাইবে তেমন। যেমন টিশার্ট এর উপর তাদের নাম বা পছন্দের কোন কোটেশন, কোন ইলাস্ট্রেশন, রাশি সাইন বা পছন্দের কোন কার্টুন দিয়ে এক্স্যাক্ট ঐ রকমের টিশার্ট ডিজাইন।

BD Gossips: এত কিছু থাকতে আপনি কেন কাস্টমাইজড টিশার্ট ডিজাইনই করছেন?

তামরিন: আসলে আকাআকি আর ডিজাইন করা আমার খুব পছন্দের কাজ। তাই আমি হ্যান্ড প্রিন্টের মাধ্যমেই ডিজাইন গুলো করে থাকি। আর আমার কাজ গুলিও সবাই পছন্দ করছে। বলা যায় আমার প্যাশনই আমার পেশায় পরিণত হয়েছে।

22627590_1876201345727543_1621700858_n

BD Gossips: শুরুতে আপনার কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল?

তামরিন: শুরুতে প্রচুর সমস্যায় পড়তে হয়েছে। ডেলিভারি সার্ভিস এর গাফিলতি, হোল-সেল রেট এ কাঁচামাল না পাওয়া, পেজ এ মানুষের তেমন কোন রেসপন্স না পাওয়া.. এসব নিয়ে স্ট্রাগল ও যেমন করেছি আজকে কাজ নিয়ে তার ডাবল রিস্পন্স ও পাচ্ছি। ঐসময় সদ্য দাড় করানো ব্যবসার সব কাজ একা হাতে সামলানো আমার জন্যে ভালোই চ্যালেঞ্জিং একটা ব্যাপার ছিল।

BD Gossips: আপনার ভবিষ্যৎ পরিচল্পনা কি?

তামরিন: আপাতত ফেইসবুক পেইজ www.facebook.com/tattoostylebd এর মাধ্যমে আর আমার ডিজাইনের টিশার্ট কেনা গেলেও  আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হচ্ছে Tattoo Style কে একটা ব্র‍্যান্ড হিসেবে দাড় করানো। একটা আউটলেট দেয়া। এখন অনলাইন বেজড হলেও পরে মানুষ শপ থেকে এসে যাতে দেখে কিনতে পারে। সেখানে আমার নিজস্ব ডিজাইনের টিশার্টের পাশা পাশি আমার ডিজাইনের অন্যান্য ড্রেস আইটেম ও প্রডাক্ট থাকবে।

BD Gossips: ব্যস্ততার মাঝেও সময় দেয়ার জন্য BD Gossips পক্ষ থেকে আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

22687642_1876037692410575_580545142258719_n

স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হচ্ছেন পুরুষেরাও

স্তন ক্যানসার শুধু নারীদের রোগ নয়, তা হতে পারে পুরুষেরও। সাম্প্রতিককালে পুরুষদের এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বাড়ছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ক্যানসার সোসাইটির একটি পরিসংখ্যান।

সেখানে দেখানো হয়, ২০১৫ সালে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ লাখ ৩১ হাজার ৮৪০ জন নারী। সে বছর একই রোগে ভুগেছেন ২ হাজার ৩৫০ জন পুরুষ।

ক্যানসার বিশেষজ্ঞ জ্যানেল সেগে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম ‘ইউএসএ টুডে’কে জানিয়েছেন, পুরুষের স্তনে কোষের সংখ্যা কম থাকাটা আশীর্বাদের সঙ্গে অভিশাপও। পুরুষের স্তনে কোষের ঘনত্ব বেশ কম। এ কারণে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হলে ভেতরকার ‘গোটা’ শনাক্ত করা সহজ। আবার কোষের ঘনত্ব কম হওয়ায় পুরুষের স্তন থেকে ক্যানসার ছড়িয়ে পড়ার হার অনেক বেশি। পুরুষের স্তনে ক্যানসার শনাক্ত করার পর অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, রোগটা ছড়িয়ে পড়েছে দেহের অন্যান্য অংশেও।

ডিসেম্বরেই বিয়ে করছেন পাওলিও দাম

বছরের শেষ দিকে এসে বোধহয় তারকাদের বিয়ের ধুম পড়ে গেলে। গতকালই খবর বেরিয়েছে, ডিসেম্বরে বিয়ে করছেন এই সময়ের সবচেয়ে বড় তারকা জুটি বিরাট  কোহলি ও আনুশকা শর্মা।

সেই খবরের রেশ না কাটতেই নয়া বিয়ের খবর। এবারের সুখবরটা শোনালেন কলকাতার হট সেনসেশন অভিনেত্রী পাওলি দাম। এক ধাপ এগিয়ে তিনি আবার বিয়ের দিনক্ষণও ঠিক করে ফেলেছেন। ভারতীয় মিডিয়ার খবর বলছে, আগামী ৪ ডিসেম্বর সোমবার বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন পাওলি। পাত্র ব্যবসায়ী অর্জুন দেব। কলকাতার তাজ বেঙ্গলে হবে বিয়ের অনুষ্ঠান। যেহেতু পাত্রপক্ষের নিবাস গুয়াহাটি, তাই সেখানে ১০ ডিসেম্বর বিয়ের রিসেপশন দেয়া হবে।

পাওলি যে বিয়ে করতে চলেছেন তার গুঞ্জন অনেক দিন ধরেই চলছিল। তবে নায়িকা নিজের মুখে কোনও কিছুই স্বীকার করতে চাইছিলেন না।

এখনও পাওলি এ ব্যাপারে কিছু বলতে নারাজ। বিয়ে তাঁর কাছে ভীষণ ব্যক্তিগত একটি সিদ্ধান্ত। তাই গোটা বিষয়টা ব্যক্তিগত পর্যায়েই রাখতে চান। কিন্তু খবর তো ছড়াতেই থাকে। প্রথমে বিয়ের গোটা অনুষ্ঠানই গুয়াহাটিতে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরে সিদ্ধান্ত হয়, বিয়ে হবে কলকাতায় মেয়ের বাড়িতে। ৬ তারিখে পরিবারসহ গুয়াহাটি যাবেন পাওলি-অর্জুন। বিয়েতে ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর ঘনিষ্ঠ সকলকেই আমন্ত্রণ জানাবেন পাওলি। ইতিমধ্যে অনেকের কাছে সেভ দ্য ডেট মেসেজ পৌঁছেও গিয়েছে। অর্জুনের ব্যবসায়ী পরিবৃত্তটিও কম বড় নয়। অতিথি তালিকায় রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। পাওলির এক ঘনিষ্ঠজন জানিয়েছেন,  নিজে গিয়েই দিদি মমতাকে আমন্ত্রণ জানাবেন নায়িকা।

ইতালীয় কনসাল জেনারেলের এক পার্টিতে আলাপ হয় পাওলি আর অর্জুনের। তার পরেও একাধিক অনুষ্ঠানে দুজনের দেখা হয়। প্রেম পর্বের সেই শুরু। প্রেমের বিষয়টিও পাওলি গোপন রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এ সব তো চাপা থাকে না। হবু বরকে তিনি অবশ্য জোজো বলে ডাকেন। তবে বিয়ে করলেও কখনো অভিনয় ছাড়ছেন না নায়িকা। পাওলি এর আগে বহুবারই বলেছেন, বিয়ে করলেও অভিনয় চালিয়ে যাবেন। অর্জুনেরও এ ব্যাপারে নাকি পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। তবে বিয়ের জন্য তিনি জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটি নিয়েছেন বলে খবর। ফেব্রুয়ারি থেকে ফের কাজ শুরু করবেন। তাঁর আগামী ছবির শিডিউল অন্তত তেমন কথাই বলছে।